মেনু নির্বাচন করুন

চিওড়া সরকারী ডিগ্রী কলেজ

 

ঐতিহ্যবাহী চিওড়া সরকারী কলেজ কুমিল্লা জেলার চৌদ্দগ্রাম উপজেলাধীন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের প্রায় দেড় কিলোমিটার পশ্চিমে অত্যন্ত্য সুন্দর যোগাযোগ ব্যবস্থা সম্বলিত ছায়াঘেরা মনোরম স্নিগ্ধ পরিবেশ ৪ একর জায়গার উপর অবস্থিত।
১৯৬৯ সালে বিদ্যুৎসাহী সাবেক সংসদ সদস্য ও আওয়ামী লীগের তৎকালীন বিশিষ্ট নেতা ও সমাজ সেবক কাজী জহিরুল কাইয়ুম এর উদ্যোগে তার নিজস্ব জায়গায় প্রতিষ্ঠিত হয় ঐতিহ্যবাহী চিওড়া সরকারী কলেজ। ৯০ জন ছাত্র-ছাত্রী, ১৮ জন শিক্ষক ও ১৪ জন কর্মচারী নিয়ে ১৯৬৯ সালে কলেজটির যাত্রা শুরু হয়।  ১৯৭১ সালে অত্র কলেজ থেকে প্রথম বারের মত ৭৮জন ছাত্র-ছাত্রী এইচ.এস.সি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। অত্র এলাকার কৃতি সন্তান তৎকালীণ বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধান মন্ত্রী জনাব কাজী জাফর আহমেদের সহযোগীতায় ১৯৮৭ সালে কলেজটি সরকারী কলেজে রূপান্তরিত হয়। কলেজটির কান্ডারী হিসেবে প্রথম অধ্যক্ষের গুরু দায়িত্ব পালনে নিয়োগ পান জনাব আব্দুর রব। তিনি অত্যত্ম যোগ্যতার সাথে ২(দুই) বছর দায়িত্ব পালন করেন। জাতীয় করণের পূর্বে জনাব আশ্রাফ উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী ০১/০১/১৯৭২ইং হতে ১৮/০৯/১৯৮৭ইং পর্যত্ম অধ্যক্ষের দায়িত্ব পালন করেন। জাতীয় করণের পরও ১৯/০৯/১৯৮৭ ইং হতে ১৮/০৬/১৯৯৬ পর্যত্ম ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ছিলেন। এর পর বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন অধ্যক্ষের কর্মতৎপরতায় কলেজটি ক্রমান্বয়ে সমৃদ্ধ থেকে সমৃদ্ধতর হয়ে ওঠে, এই সাফল্যের ধারাবাহিকতায় হঠাৎ ছন্দপতন ঘটে। এ অবস্থায় সুযোগ্য শিক্ষক মহোদয়গণ বদলী হয়ে অন্যত্র চলে যাওয়ার কারণে কলেজটি শিক্ষক ও ছাত্র শুণ্য হয়ে পড়ে। ফলে প্রায় ৪ (চার) বছর শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ থাকে। এমতাবস্থায় ২০০৫ সালের ২রা জুলাই ২৪তম বি.সি.এ (সাধারণ শিক্ষা) ক্যাডারের ১০ জন নবীন, কর্মোদ্যোগী শিক্ষক যোগদানের মধ্যদিয়ে সুযোগ্য অধ্যক্ষ জনাব আব্দুর রহীম চৌধুরীর নেতৃত্বে এলাকাবাসীর সহযোগীতায় কলেজটির পূনর্জম্ম হয় এবং এর নতুন অধ্যায়ের সুচনা হয়। শুরু হয় পুনরায় ছাত্রছাত্রী ভর্তি ও পাঠদান কর্মসূচী। পরবর্তীতে ২০০৬ সালের এপ্রিলে ২৬তম ও ২৭তম বি.সি.এস (সাধারণ শিক্ষা) ক্যাডারের আরও ৮ জন নবীন শিক্ষক যোগদান করায় কলেজের সার্বিক পরিস্থিতির অগ্রগতি সাধিত হয়। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন সুযোগ্য অধ্যক্ষের প্রশাসনিক কর্মতৎপরতায় বিভিন্ন সমস্যা কাটিয়ে জরাজীর্ণ কলেজ পূর্ণাঙ্গরূপ লাভের প্রত্যাশায় তৎপর হন। কলেজের সুযোগ্য প্রাক্তন অধ্যক্ষ নিতাই চন্দ্র দত্ত এর সময়ে কম্পিউটার, বইপত্র, আসবাবসামগ্রী ও শিক্ষাপোকরণে খুবই সমৃদ্ধ হয়। প্রাক্তন সুযোগ্য অধ্যক্ষ প্রফেসর এম.এম শফিউদ্দীন এর নিরলস প্রচেষ্টায় এইচ.এস.সি পরীক্ষাকেন্দ্র পুনর্বহাল এবং ডিগ্রী পাস কোর্সে পুনরায় ছাত্র ভর্তি ও পাঠদান কার্যক্রম শুরু হয়। গত ০২/০৮/২০০৯ইং তারিখে সৎ, নির্ভিক, দায়িত্ব ও কর্তব্য সম্পাদনে যত্নশীল অধ্যক্ষ প্রফেসর যোগেশ চন্দ্র সরকার এর যোগদানের মধ্য দিয়ে ছাত্র-ছাত্রীদের পদচারণায় কলেজে অঙ্গন মুখরিত হয়। ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্নের সাথে তাল মিলিয়ে চিওড়া সরকারী কলেজে প্রথমবারের মত ইন্টারনেট চালু করা হয়। কলেজের শিক্ষবৃন্দ অক্লাত্ম পরিশ্রম করেন। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটির সফলতা অব্যাহত আছে।